সীমিত পরিমাণে চামড়া কিনছেন ট্যানারি মালিকরা

0
54

নিজস্ব প্রতিবেদক

আজ শনিবার থেকে সীমিত পরিমাণে কোরবানির পশুর লবণযুক্ত কাঁচা চামড়া কেনা শুরু করেছেন ট্যানারি মালিকরা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ও সালমা ট্যানারির মালিক সাখাওয়াত উল্লাহ। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, আজকে ময়মনসিংহ হাট থেকে আমাদের অনেকেই লবণযুক্ত কাঁচা চামড়া কিনেছেন। আনুষ্ঠানিকভাবে আমরা সেখান থেকে কাঁচা চামড়া কেনা শুরু করেছি। এখন প্রতিদিনই যে যার মতো কাঁচা চামড়া কিনবেন বলে তিনি জানান।

তিনি উল্লেখ করেন, সরকারের নির্ধারণ করে দেওয়া দামে আগামী দুই মাস চামড়া সংগ্রহ করা হবে। তবে আড়তদারদের কাছ থেকে আজ ট্যানারি মালিকরা কোনও চামড়া কিনতে পারেননি।

এদিকে আড়তদারদের পাওনা টাকা পরিশোধ না করলে এবার ট্যানারি মালিকদের কাছে তারা চামড়া বিক্রি করবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন পুরান ঢাকার পোস্তার কাঁচা চামড়ার আড়তদাররা। আড়তদারদের এক জরুরি সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। শনিবার (১৭ আগস্ট) রাজধানীর লালবাগের পোস্তায় সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান কাঁচা চামড়া আড়তদারদের সংগঠন বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের (বিএইচএসএমএ) সভাপতি দেলোয়ার হোসেন।

দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘ট্যানারি মালিকদের কাছে আড়তদারদের প্রায় ৪০০ কোটি টাকা পাওনা রয়েছে। এই পরিমাণ টাকা পরিশোধ না করা পর্যন্ত ট্যানারি মালিকদের কাছে আমরা চামড়া বিক্রি করবো না।’

এর আগে গত বুধবার (১৪ আগস্ট) বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন সংবাদ সম্মেলন করে কাঁচা চামড়ার দাম কমানোর নেপথ্যে আড়তদারদেরকেই দায়ী করেছিলেন। সংগঠনটির চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ ওইদিন বলেছেন, চামড়ার দাম না পাওয়া ও বর্তমান পরিস্থিতির জন্য দায়ী আড়তদাররা। তিনি বলেন, বকেয়া টাকা আদায় হয়নি এমন দোহাই দিয়ে কোরবানির কাঁচা চামড়ার দাম কমিয়ে ফায়দা লুটেছেন অসাধু আড়তদাররা। এসব আড়তদারই সিন্ডিকেট করে মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ীদের ঠকাচ্ছেন বলেও দাবি করেন তারা।

এমন অবস্থায় আগামীকাল রবিবার (১৮ আগস্ট) বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ট্যানারি মালিক, আড়তদার ও কাঁচা চামড়া সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে বসবে। সেখানে চামড়ার বর্তমান বাজার পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হবে।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ বছরের মধ্যে এবারই সবচেয়ে কম দামে বিক্রি হয়েছে পশুর চামড়া।

মৌসুমী ব্যবসায়ীরা এবার ৮০ হাজার টাকার গরুর চামড়ার দাম দিয়েছেন ২শ’ টাকারও কম। এক লাখ টাকার গরুর চামড়া বিক্রি হয়েছে মাত্র ৩শ’ টাকায়। চামড়ার দাম না পাওয়ায় কোরবানিদাতাদের অনেকেই ক্ষুব্ধ হয়ে চামড়া মাটিতেও পুঁতে দিয়েছেন। অনেকে রাস্তাতেও চামড়া ফেলে দিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here